জীবনের অর্থ খোঁজার প্রয়াসে ছন্দ কবিতা 'খেয়ালী এই মন'।

আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩৯

খেয়ালী এই মন

 

খেয়ালী এ মন, ভালবাসে সারাক্ষণ করতে খেলা
কেবলি ঘোরে মনের ফেরে, অতীতে আর ভবিষ্যতে
বর্তমানে থাকা নিয়ে মনের যত অবহেলা।

ভবিষ্যতটা তার পছন্দ বেজায়
যেন মহাজন বাড়ীর আদরের ঘর জামায়।
মুরগীর রান আর মাছের মাথা, জামায় বলে কথা
অরগানিক আর তাজা, স্বপ্ন ঘোরে খেতে ভারী মজা।
দাম যদি হয় কম বা বেশী, হোক না তা দেশী বিদেশী।
কিছুই তাতে যায় আসে না,
গাছ না লাগিয়েই ফল ষোল আনা।

অতীত যেন ছবি আঁকা, নীল পর্দায় খেলা দেখা।
সব অতীতই থাকে মৃত, যদি তাকে না করে জীবিত।
ভবিষ্যতটা সত্য নয়, তার অস্তিত্ব কেবল ভাবনায়।

দুটোই যেন মায়া মাখা, গভীর ঘুমে স্বপ্ন দেখা।
স্বপ্ন ভাল হলে, দেহ মন আনন্দে দোলে
খারাপ স্বপ্ন কষ্ট দেয়, অবুঝ মনে ভয় জাগায়।
স্বপ্ন ভাল খারাপ যেন তেন, সে যায় হোক না কেন
শরীরটাকে ঠিক উস্কে দেবে, দেহ থেকে নানা রস ঝরাবে
ঠিক যেমনটি এ ভবে হয় বাস্তবে।

স্বপ্ন এক মজার ব্যাপার;

ভাল স্বপ্ন ভঙ্গ হলে, মজাটা শেষ হয়ে গেলে
আফসোসে মন ভরে যায়।
খারাপ স্বপ্ন ভাঙলে শেষে, ধড়ফড়িয়ে উঠে বসে
চিমটি কেটে নিজ শরীরে, জেগে কিনা যাচায় করে
মনে হয় ভয়, স্বপ্নটা যেন সত্যি না হয়!

যদি কেউ প্রাণে মনে, থাকে জেগে বর্তমানে
অতীত সব ঘুমিয়ে থাকে, যদি তাকে কেউ না ডাকে,
হোক তা, মধুর কিম্বা তিতা।
ভবিষ্যৎ! তা সব অযথা, ভাবনা বৃথা,
না মিললে সাক্ষাৎ, অলীকতার সাথে নেই তার তফাৎ।

গত আর অনাগত, নেই তার নিশ্চয়তা হিসেব মত।
কিন্তু অবুঝ এ মন, সেটা নিয়েই সারাক্ষণ
করে দুশ্চিন্তা যত।

বর্তমানে, হাজির না থাকাতে সর্বক্ষণে যথাযথ,
মনের বাঘের ভয়ে, চোখ বোজে সব ভীত হয়ে
আর বনের বাঘে সব সাবাড় করে ইচ্ছে মত।


Read More